বিশেষ সংবাদ:

শুভ জন্মদিন নির্মাতা আজিজুর রহমান

Logoআপডেট: মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৭

এবি প্রতিবেদক
‘ছুটির ঘণ্টা’-খ্যাত নন্দিত নির্মাতা-প্রযোজক আজিজুর রহমানের জন্মদিন আজ। ১৯৩৯ সালের এই দিনে তিনি বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ছুটির ঘণ্টা, মাটির ঘর, জনতা এক্সপ্রেস ও অশিক্ষিত’সহ বেশ কিছু কালজয়ী সিনেমা নির্মাণ করেছেন আজিজুর রহমান।

 

দেশের চলচ্চিত্র জগতের একজন খ্যাতিমান চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক হিসেবে আজিজুর রহমান দেশ-বিদেশে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছেন। এ পর্যন্ত তিনি ৬০টিরও বেশি ছবি পরিচালনা করে বাংলা চলচ্চিত্রের জননন্দিত সফল চিত্র পরিচালক হিসেবে এ উপমহাদেশে স্থান করে নেন। আজিজুর রহমান আহসানুল্লাহ ইনস্টিটিউট থেকে এসএসসি ও ঢাকা সিটি নাইট কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর তিনি চারুকলা আর্ট ইনস্টিটিউটে কমার্শিয়াল আর্টে ডিপ্লোমা করেন। ১৯৫৮ সালে পরিচালক এহতেশামের সহকারী হিসেবে ‘এ দেশ তোমার আমার’ চলচ্চিত্রে যুক্ত হন আজিজুর রহমান। এরপর এহতেশাম, মোস্তাফিজ ও অন্যান্য পরিচালকের সাথে ২৫টি চলচ্চিত্রে সহকারী হিসেবে কাজ করেন। ১৯৬৭ সালে পরিচালক হিসেবে অভিষেক হয় আজিজুর রহমানের। নির্মাণ করেন ময়মনসিংহের লোককথা নিয়ে সিনেমা ‘সাইফুল মূলক বদিউজ্জামান’। তার পারিচালিত অন্যান্য চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে স্বীকৃতি, সমাধান, অগ্নিশীখা, লাল কাজল, দিল, ঘরে ঘরে যুদ্ধ, অপরাধ, গরমিল, মায়ের আচঁল প্রভৃতি। ২০১৬ সালে ‘মাটি’ নামের একটি চলচ্চিত্রের ঘোষণা দিলেও তা শুটিং ফ্লোরে যায়নি।

 


১৯৭১ সালে প্রথম চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেন আজিজুর রহমান। তার প্রযোজিত প্রথম চলচ্চিত্র অশোক ঘোষ পরিচালিত রাজ্জাক-শবনম অভিনীত ‘নাচের পুতুল’। আজিজুর রহমান প্রযোজিত অন্যান্য চলচ্চিত্রের মধ্যে মাটির ঘর, কুচবরণ কন্যা, রঙিন রূপবান, কাঞ্চন মালা, জিদ উল্লেখযোগ্য। বাংলার পাশাপাশি তিনি মেরে আরমান মেরে স্বপ্নে, সাত সেহেলী, বস্তির রানী, পরদেশে রেহেনে দো’সহ বেশ কয়েকটি উর্দু ছবি পরিচালনা করেন। চলতি বছরের শুরুর দিকে হৃদযন্ত্রের সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন আজিজুর রহমান। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আর্থিক সহযোগিতায় সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নেন। বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন।