বিশেষ সংবাদ:

বাউলদের কর্মশালা সমাপ্তি, সম্মাননা পেলেন পার্বতী বাউল

Logoআপডেট: বুধবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৮

এবি প্রতিবেদক

উপমাহদেশের প্রখ্যাত শিল্পী পার্বতী বাউল-এর পরিচালনায় ২৮-৩০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়েছে বাউল সঙ্গীত কর্মশালা। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে তিন দিনব্যাপী এ কর্মশালা চলে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

শিল্পকলার সঙ্গীত দল ও বাউল দলসহ প্রতিশ্রুতিশীল ৪২জন শিল্পী এই কর্মশালায় অংশ নেয়। একাডেমির সঙ্গীত ও নৃত্যকলা ভবনের মহড়া কক্ষে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালার সমাপনী দিনে শিল্পী পার্বতী বাউলকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

সম্মাননা স্মারক তুলে দেন একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। এছাড়াও অনুষ্ঠানে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদপত্র প্রদান করা হয়। এসময় কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী বাউল শিল্পী মিলন ও বিপাশাকে কলকাতায় আশ্রমে নিয়ে গান শেখানোর জন্য বৃত্তি প্রদানের ঘোষণা করেন শিল্পী পার্বতী বাউল।

সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সরকারি সঙ্গীত কলেজের অধ্যক্ষ কৃষ্টি হেফাজ, জালের গানের শিল্পী রাহুল আনন্দ এবং বাউল গবেষক আবদেল মান্নান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন গবেষক কমল খালিদ।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে ২৭ অক্টোবর জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে শিল্পী পার্বতী বাউল-এর পরিবেশনায় বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পার্বতী বাউল উপমহাদেশের একজন প্রখ্যাত বাউল সঙ্গীতশিল্পী। বাউল গানের তত্ত্ব কথাগুলি তিনি তার সাধক-শিষ্যদের কাছে গানের সাথে সাথে গল্পের মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেন। বাউল সাধিকা ফুলমালি দাসী, সনাতন দাস বাউল, শশাঙ্ক গোঁসাই এই তিনজনের কাছ থেকে তিনি বাউল দীক্ষা গ্রহণ করেন। শৈশবে পার্বতী বাউল এর  নাম ছিল মৌসুমি পারিয়াল। দেশভাগের আগে তাঁর পূর্বপুরুষদের বাস ছিল বাংলাদেশের রাউজানের পশ্চিম গুজরার গ্রামে।