বিশেষ সংবাদ:

একটি কাঠের চেয়ারের মূল্য ৩ কোটি টাকা!

Logoআপডেট: শনিবার, ০৯ এপ্রিল, ২০১৬

এবি ডেস্ক
গত ৭ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) গদিআঁটা একটি কাঠের চেয়ার বিক্রি হয়েছে তিন লাখ ৯৪ হাজার মার্কিন ডলারে!

 

যা বাংলাদেশি টাকায় তিন কোটি নয় লাখ তিন হাজার ৩৭০। কি অবাক হচ্ছেন? আসলে ওই চেয়ারে বসেই ‘হ্যারি পটার’ সিরিজের প্রথম দুটি উপন্যাস লিখেছেন বিখ্যাত ব্রিটিশ লেখিকা জে কে রাওলিং। তাই এর এত কদর! জে কে রাওলিংয়ের হ্যারি পটার লেখার চেয়ারটি গত বুধবার নিউইয়র্কের এক নিলামে বিক্রি হয়। নিলামকারী প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের হেরিটেজ অকশন।

 

হেরিটেজ অকশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করসহ তিন লাখ ৯৪ লাখ মার্কিন ডলারে বিক্রি হয়েছে রাওলিংয়ের চেয়ার। এর আগে, ২০০৯ সালে এক নিলামে ২৯ হাজার ১১৭ মার্কিন ডলারে চেয়ারটি বিক্রি হয়েছিল। তবে গত বুধবারের বিক্রয়মূল্য আগের মূল্যের চেয়ে ১৪ গুণ বেশি। বিভিন্ন আঁকাবুকি থাকা চেয়ারটিতে জে কে রাওলিংয়ের স্বাক্ষরও আছে। হ্যারি পটার সিরিজের প্রথম দুটি উপন্যাস ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফারস স্টোন’ এবং ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য চেম্বার সিক্রেট’ এই চেয়ারটিতে বসেই লেখেন জে কে রাওলিং। উপন্যাস দুটি লেখা হয় যথাক্রমে ১৯৯৭ ও ১৯৯৮ সালে। চেয়ারের পাশে রাখা এক চিঠিতে জে কে রাওলিং লিখেছেন, এটি ছিল সবচেয়ে আরামদায়ক, এই কারণে আমার টাইপরাইটারের কাছে চেয়ারটি স্থান করে নেয় এবং সহায়তা করে যখন আমি লেখি।’ তিনি আরো লিখেছেন, ‘আমার স্মৃতিবিধুর অংশ একে যেতে দিয়ে কষ্ট পায়, তবে আমার পিঠ কষ্ট পায়নি। এই চেয়ারে বসেই আমি হ্যারি পটার লিখেছি।’

 


১৯৩০-এর যুগের ওক কাঠের তৈরি চেয়ারটি সামঞ্জস্যহীন চারটি চেয়ারের এক সেটের অংশ। স্কটল্যান্ডের এডিনবার্গ শহরে থাকাকালে বিনামূল্যে চেয়ারের সেটটি পেয়েছিলেন রাওলিং। শিশুদের ওপর সহিংসতা প্রতিরোধের একটি সংগঠনকে ২০০২ সালে বিশেষ চেয়ারটি দান করেন তিনি। এর আগে জে কে রাওলিংয় বিভিন্ন রঙে চেয়ারজুড়ে আঁকাবুকি করেন। বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় শিশুতোষ উপন্যাস সিরিজ ‘হ্যারি পটার’। ৬৭টি ভাষায় অনূদিত হ্যারি পটার সিরিজের উপন্যাসগুলোর ৪৫ কোটি কপি বিক্রি হয়েছে। এ ছাড়া এসব উপন্যাসের ওপর চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়েছে। আর বই ও চলচ্চিত্রের আয় থেকে জে কে রাওলিং হয়েছেন শতকোটি ডলার আয় করা প্রথম লেখিকা।