বিশেষ সংবাদ:

‘সে আমার ঠোঁটে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করে’

Logoআপডেট: রবিবার, ০৭ অক্টোবর, ২০১৮

এবি প্রতিবেদক
অনেকদিন ধরেই ‘কাস্টিং কাউচ নিয়ে সরগরম রয়েছে বি-টাউন। তারকারা একের পর এক যৌন হয়রানির অভিযোগ করছেন সহশিল্পী কিংবা নির্মাতার বিরুদ্ধে। এ নিয়ে প্রকাশ্যেই নানা বিস্ফোরক মন্তব্যে ঝড় বইছে নেট দুনিয়ায়।সম্প্রতি বর্ষিয়ান অভিনেতা নানা পাটেকার-এর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন অভিনেত্রী তনুশ্রী।এ নিয়ে জল ঘোলা হয়ে অবশেষে সেই অভিযোগ গড়িয়েছে মামলা পর্যন্ত।

যাই হোক, এবার বলছি অন্য ঘটনা। ‘কুইন’ ছবিতে কঙ্গনা রানাউতের বন্ধু ‘সোনাল’ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন নয়নী দীক্ষিত। পরিচালক বিকাশ বেহ্ল-এর বিরুদ্ধে কঙ্গনার অভিযোগের ঠিক পরদিন গতকাল এই নয়নী ইকাশের বিরুদ্ধে এনেছেন মারাত্মক অভিযোগ। নয়নী বলেছেন এক পার্টিতে বিকাশ জোর করে তার ঠোঁটে চুমু খেতে চেয়েছিলেন!

শুধু তা-ই নয়। বিকাশকে ফন্দিবাজ অবধি বলেছেন নয়নী। এমনকি, পরিচালকের পাশে একা থাকতেও তিনি ভয় পান বলে পরিষ্কার জানিয়েছেন ওই অভিনেত্রী। সংবাদমাধ্যমের কাছে ওই নয়নীর অকপট স্বীকারোক্তি,‘‘ঘটনাটা একটা পার্টির। বিকাশও ছিল সেই পার্টিতে। সেদিন আমি নিজেকে সেফ মনে করেছিলাম, কারণ ইন্ডাস্ট্রির আরও অনেক চেনা মানুষ সেখানে ছিলেন।

কিন্তু লোকজনের সামনে ও সব সময়েই নিজেকে মাতাল দেখানোর একটা চেষ্টা করে। যেটা আমার সামনেও করছিল। আর চোখাচোখি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ও আমার ঠোঁটে জোর করে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করে। আমি ধাক্কা মেরে ওকে সরিয়ে দিয়েই বেরিয়ে যাই। কিন্তু তখনও ও এমন ভান করছিল যেন দেখেইনি আমি চলে গিয়েছি।’’

আর ঠিক তার পরেই রীতিমতো ভয় পেয়ে বয়ফ্রেন্ডের বাড়িতে চলে যান বলে জানিয়েছেন নয়নী। কিন্তু তিনি বেরিয়ে যাওয়ার পরেই বিকাশ একের পর এক টেক্সট মেসেজ পাঠাতে শুরু করেন। নয়নী বলেন- ‘‘কমপক্ষে আরও ২০ জন ছিলেন ওই পার্টিতে। আমার বয়ফ্রেন্ডের বাড়ি আসতেই দেখি একের পর এক বিকাশের মেসেজ। লিখছে, তুমি কেন চলে গেলে? আমিই তোমাকে ছেড়ে আসতে পারতাম। সেদিন মদ বা সিগারেটের কিছুই আমি ছুঁয়ে অবধি দেখিনি। খালি কোনওক্রমে খাবারটা খেয়েই আমি বেরিয়ে যাই।’’

নয়নী এখানেই থেমে থাকেননি। বললেন, ‘বিকাশের প্রাক্তন স্ত্রীও ওর অমন বদ অভ্যাসগুলির কথা জানেন।’ নয়নীর অভিযোগ, ‘‘ওর প্রাক্তন স্ত্রীর জীবনটাই শেষ করে দিয়েছেন বিকাশ। এর আগেও নানান সংস্থা থেকে বিকাশ বেহলের নামে এমন অভিযোগ অনেকেরই কানে এসেছে। কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো, ও যে এমনটা প্রায়শই করে থাকে সেটা জানা সত্ত্বেও কেন বাকিরা ওর সঙ্গে দুম করে একটা প্রযোজনা সংস্থা খুলে বসল?’’

কয়েকবছর আগে চার বন্ধু বিকাশ বেহল, মধু মান্টেনা, অনুরাগ কাশ্যপ এবং বিক্রমাদিত্য মোতয়ানে মিলেই শুরু করেছিলেন ‘ফ্যান্টম ফিল্মস’। বিকাশের বিরুদ্ধে এত এত অভিযোগের পর গত পরশু ‘ফ্যান্টম ফিল্মস’ বন্ধ করে দিয়েছেন অনুরাগ এবং বিক্রম। তবে এত ঘটনা ঘটে যাচ্ছে যাকে নিয়ে, সেই বিকাশ এখনো পর্যন্ত কোনো কিছু বলছেন না। দেখা যাক কবে কী বলেন এই পরিচালক।