বিশেষ সংবাদ:

আবারও ইরাকি মডেলকে গুলি করে হত্যা!

Logoআপডেট: শনিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

এবি ডেস্ক
তারা ফারেসের ইনস্টাগ্রামে ২০ লাখেরও বেশি ফলোয়ার। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি জুটিয়েছেন অসংখ্য ভক্ত-অনুরাগী। কিন্তু নিমিষেই সব শেষ! মডেল তারা ফারেসকে ইরাকের বাগদাদে গুলি করে হত্যা করেছে বন্দুকধারী একদল দুর্বিত্ত। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ক্যাম্প সারাহ’য় বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত হন এই সাবেক মিস বাগদাদ।

ইরাকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তারা ফারেসের মৃত্যুতে ফ্যান, ফলোয়ার ও স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেয়ে এসেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তাকে স্মরণ করে সাদা-কালো ছবি প্রকাশ করেছে ভক্তরা।

ইরাকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাদ মান ইরাকি টেলিভিশনে জানান, ফারেজ একটি গাড়ির ভেতর অবস্থানকালে দুইজন মোটরসাইকেল আরোহী তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। তারা এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চালাচ্ছে। সঙ্গে বন্দুকধারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

জানা যায়, ২২ বছর বয়সী খ্রিস্টান ধর্মালম্বী ফারেসের বাবা ইরাকি এবং মা লেবানিজ। অধিকাংশ সময়েই দেশের বাইরে থাকতেন এই মডেল। তিনি এরবিলে বসবাস করলেও মাঝে মাঝে রাজধানীতে আসতেন। দেশে আসলে থাকতেন কুর্দিস্তান প্রদেশে। সেখানে অপেক্ষাকৃত উদারনৈতিক পরিবেশে নিরাপদেই চলাফেরা করতেন। কিন্তু, এবিার বাগদাদে এসেই হত্যাকাণ্ডের শিকার হলেন তারা ফারেস।

সাহসী পোশাক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টের কারণে তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ২০১৪ সালে তিনি মিস বাগদাদ প্রতিযোগিতায়ও শীর্ষ প্রতিযোগী ছিলেন। তবে ফারেসই প্রথম নয়, এ নিয়ে বিগত কয়েক মাসের মধ্যে ইরাকে দুই মডেল বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত হন। এ সপ্তাহে সোওদ আল-আলি নামে এক নারী অধিকারকর্মীকেও নিজের গাড়িতে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

দেশটিতে ইসলামি জঙ্গি সংগঠন আইএসের পতনের পরও উগ্রগোষ্ঠী সক্রিয় রয়েছে। সামাজিকভাবে মুক্ত স্বাধীনতার বিরোধিতা করে আসছেন তারা। তাদেরই কেউ এসব হত্যাকাণ্ড চালাতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।