বিশেষ সংবাদ:

অভিনব কায়দায় দীর্ঘদিন থেকে মোবাইলফোনে প্রতারণা

Logoআপডেট: সোমবার, ১১ আগস্ট, ২০১৪

সোহেল পারভেজ, টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর সংবাদদাতা
মোবাইল ফোনে প্রতারণা নতুন কিছু নয়। একশ্রেণীর অসাধুচক্র মোবাইলফোন কোম্পানীগুলোর নামে লোভনীয় অফার, ্িজনের বাদশা, জিনের সরদার বলে অভিনব কায়দায় দীর্ঘদিন থেকে প্রতারণা করে আসছে।

ইতো পূর্বেও পত্র-পত্রিকায় বহুবার এ সম্পর্কিত সংবাদ প্রকাশিত হলেও ফোন কোম্পানীগুলো নিরব ভূমিকাই পালন করছেন। এই সুযোগে প্রতারকরা প্রতারণার জাল বিস্তারের মধ্য দিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে সমগ্রদেশে।

 

তাদের প্রলবন-প্রতারণায় সর্বশান্ত হচ্ছে দেশের অসংখ্য মানুষ। সম্প্রতি এমনি অভিনব এক প্রতারণার চেষ্টা করা হয় দৈনিক করোতোয়ার ভূঞাপুর প্রতিনিধির সাথে।

সোমবার সকাল ১০.১৪ মিনিটে গ্রামীণফোনের একটি নাম্বার (০১৭৮০০০০০৬৫) থেকে দৈনিক করোতোয়া পত্রিকার ভূঞাপুর প্রতিনিধি জুলিয়া পারভেজের মুঠোফোনে কল করে জানানো হয় যে, তিনি (জুলিয়া পারভেজ) গ্রামীণ ফোন কোম্পানীর ১কোটি গ্রাহকদের মধ্য থেকে লটারীর মাধ্যমে তিনজন ভাগ্যবান গ্রাহকের দ্বিতীয় ভাগ্যবান হিসেবে মনোনীত হয়েছেন।

এজন্যকোম্পানীর পকষ থেকে তিনি পাবেন ৮৬ লক্ষ ১৮ হাজার ৬শত টাকা মূল্যমানের গাড়ি অথবা গ্রাহক চাইলে নগদ অর্থও গ্রহণ করতে পারেন। বিষয়টি অত্যন্ত গোপনীয় এবং কারো সাথে বিষয়টি শেয়ার না করার জন্যও অনুরোধ জানানো হয়।

প্রতারক ঐ নাম্বার থেকে ফোন করে তার উপরস্থ স্যারের সাথে কথা বলতে বলেন এবং নাম ঠিকানা ও কোথা থেকে কথা বলছেন তা জানতে চান। করোতোয়ার প্রতিনিধি তখন বলেন বিষয়টি গোপন রাখতে হবে কেন?

তার নিজের নামে তার নাম্বারটি রেজিস্ট্রেশন করা সুতরাং গ্রামীণ ফোনের হেড অফিস থেকে ঠিকানা এবং কোথা থেকে কথা বলছেন তা জানার কথা। তারপর সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার সাথে সাথে অপর প্রান্ত থেকে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। সারা দেশে প্রতিদিন এমনি ঘটছে অসংখ্য ঘটনা। এতে করে এসব দুষ্টচক্রের প্রতারণার শিকার হয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে অনেকে।