বিশেষ সংবাদ:

বাংলাশের সামনে যত ম্যাচ

Logoআপডেট: শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

এবি ক্রীড়া প্রতিবেদক

চলতি বছরের আট মাস পেরিয়ে গেলেও ওয়ানডে, টেস্ট খেলতে মাঠে নামা হয়নি মাশরাফি-মুশফিকদের। বছর শুরুর প্রথম চার মাস টি-টোয়েন্টি নিয়েই বুঁদ হয়েছিলেন ক্রিকেটাররা।

 

জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ, ফেব্রুয়ারিতে এশিয়া কাপ, মার্চে ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করে সাকিব-তামিমরা। কিন্তু গেল চার-পাঁচ মাস কোনো ফরম্যাটেই মাঠে নামা হয়নি তাদের। তাইতো দেশের অগণিত ক্রিকেট অনুরাগী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন টাইগারদের দৃষ্টিনন্দন পারপরমেন্স দেখার জন্য।

 

 

দীর্ঘ অপেক্ষার পর সেপ্টেম্বরে এসে ওয়ানডে খেলার সুযোগ পাচ্ছে বাংলাদেশ, প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। টেস্ট খেলার সুযোগ আসবে অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। এ দুটি সিরিজ নিয়ে বাংলাদেশ দলের ব্যস্ততা শুরু হয়ে যাবে ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে। ঈদের ছুটি শেষে ওইদিন থেকেই মিরপুরে শুরু হবে জাতীয় দলের অনুশীলন ক্যাম্প। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যস্ততা বিরামহীনভাবে চলবে আগামী বছরের জুনের মাঝামাঝি পর্যন্ত। জুনে ইংল্যান্ডে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নেবে বাংলাদেশ।

 

 

বাংলাদেশ দলের আসন্ন সূচি:

 


আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ:

 

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আগামী ২১ নভেম্বর ঢাকায় আসবে আফগানিস্তান ক্রিকেট দল। আগামী ২৫ ও ২৮ সেপ্টেম্বর সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ ০১ অক্টোবর। সবগুলো ম্যাচই মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে।

 

 

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজ:

 

আফগানিস্তান দল বাংলাদেশ ছাড়ার আগেই তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্ট খেলতে ঢাকায় পা রাখবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। ৭ ও ৯ অক্টোবর প্রথম দুটি একদিনের ম্যাচ মিরপুরে। এরপর ১২ অক্টোবর শেষ একদিনের ম্যাচটি হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। একই ভেন্যুতে ২০ অক্টোবর থেকে শুরু হবে প্রথম টেস্ট ম্যাচ। ২৮ অক্টোবর থেকে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টটি হবে শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে।

 

 

নিউজিল্যান্ড সফরে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ:

 

ডিসেম্বরে পুর্ণাঙ্গ সিরিজ (টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি) খেলতে নিউজল্যান্ড সফরে যাবে টাইগাররা। ২৬ ডিসেম্বর ক্রাইস্টচার্চে প্রথম ওয়ানডে। বাকি ম্যাচ দুটি যথাক্রমে ২৯ ও ৩১ ডিসেম্বর নেলসনে অনুষ্ঠিত হবে। তিনটি টি-টোয়েন্টির প্রথমটি ০৩ জানুয়ারি নেপিয়ারে। ৬ ও ৮ জানুয়ারি মাউন্ট মাউনগানুইতে হবে বাকি দুটি ম্যাচ। ১২ জানুয়ারি ওয়েলিংটনে শুরু প্রথম টেস্ট। ক্রাইস্টচার্চে ২০-২৪ জানুয়ারি শেষ টেস্ট।

 

 

টেস্ট খেলতে ভারত সফর:

 

২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি হায়দ্রাবাদে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ-ভারত এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। ২০০০ সালে ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই টেস্ট অভিষেক ঘটে বাংলাদেশের। প্রায় ১৬ বছর পর ভারতের মাটিতে টেস্টে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে প্রথমবার ভারতে যাবে বাংলাদেশ। বহুপ্রতিক্ষীত সফরটিকে তাই ঐতিহাসিক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

 

 

শ্রীলঙ্কা সফরে পুর্ণাঙ্গ সিরিজ:

 

আগামী বছরের মার্চে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা সফর করবে বাংলাদেশ। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, দু’দলের মধ্যে হতে পারে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সিরিজের সূচি এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

 

 

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ:

 

শ্রীলঙ্কা থেকে ফিরে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড, সফরকারী বাংলাদেশ ছাড়াও সিরিজের অপর দল নিউজিল্যান্ড। আগামী বছরের ১২ মে সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ১৭ মে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। ১৯ মে আবারো আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। কিউইদের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ মাশরাফিরা খেলবে ২৪ মে।

 

 

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি:

 

আগামী বছরের জুনে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচেই মাঠে নামবে মাশরাফি-সাকিবরা। ১ জুন ওভালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ৫ জুন একই ভেন্যুতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া এবং ৯ জুন কার্ডিফে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তারা। ১৪ ও ১৫ জুন হবে আট দলের টুর্নামেন্টের দুই সেমি-ফাইনাল। শিরোপা নির্ধারণী (ফাইনাল) ম্যাচ হবে ১৮ জুন।