বিশেষ সংবাদ:

অতঃপর আসছে ‘রূপচাঁন সুন্দরীর পালা’

Logoআপডেট: শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

এবি প্রতিবেদক 
দেশের নাট্যপ্রেমীদের কাছে অল্পদিনেই বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে পেশাদারী মনোভাবনায় গড়ে ওঠা নাট্যদল ‘বঙ্গলোক’।ব্যতিক্রমী চিন্তা ও দেশজ ভাবধারার পরিচ্ছন্ন পরিবেশনার মধ্য দিয়ে দর্শক-সমালোচকদের মন জয় করে চলছে সৃজনশীল এই নাট্য সংগঠন।


সম্পূর্ণ কিশোরগঞ্জের ভাষায় নির্মিত দলের প্রথম প্রযোজনা ‘রূপচাঁন সুন্দরীর পালা’ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে নাট্যাঙ্গনে আবির্ভূত হয় নাট্যসংগঠন বঙ্গলোক থিয়েটার। সায়িক সিদ্দিকীর রচনা ও নির্দেশনায় নির্মিত এ নাটকটি এরই মধ্যে দেশ-বিদেশে সমাদৃত হয়ে। কিন্তু নাটকটির প্রচুর দর্শক চাহিদা থাকা সত্ত্বেও দলের আরেক প্রযোজনা ‘মর্তের অরসিক’ নিয়মিত মঞ্চায়নের ফলে দীর্ঘ ছয় মাস নাটকটির মঞ্চায়ন বন্ধ রাখা হয়।

অবশেষ ছয় মাস পেরিয়ে জনপ্রিয় এই নাটকটি আবারও মঞ্চে আনতে যাচ্ছে নাট্যদল বঙ্গলোক। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে আগামীকাল ২৪ সেপ্টেম্বর সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘রূপচাঁন সুন্দরীর পালা’র ৫৭তম মঞ্চায়ন।

প্রতিভাবান নাট্যতরুণ সায়িক সিদ্দিকীর জাদুময় একক অভিনয়ে মঞ্চায়িত হবে আলোচিত এ নাটকটি। পাশাপাশি নাটকে দোহার হিসেবে রয়েছেন জিয়াউল হক সোহাগ, রাজিব রাজ, তানভীর সামদানী এবং রবিন বসাক। নাটকের আবহ সঙ্গীতে আছেন বিশ্বজিৎ (বাঁশী), তন্ময় ঘোষ (ঢোল), সত্যব্রত দাস মিঠুন (কন্ঠসঙ্গীত), তানভীর সামদানী (দোতারায়)। এ ছাড়াও আলোক সজ্জায় রয়েছেন হেনরী সেন, পোশাক পরিকল্পনায় রবিন ঘোষ এবং মিলনায়তন ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন রাজিব রাজ।

নাটকে ১৬ বছরের যুবতী কন্যা রূপচাঁন সুন্দরী। জন্মধাত্রীহারা এই মেয়ের ঘরে রয়েছে সৎ মা। রূপচাঁন আর সুজনের প্রেমের পরিনতি হিসাবে তাদের বিয়ে ঠিক হয়। কিন্তু রূপচাঁনের সৎ মায়ের ভাই-এর ছেলে সেফা মিয়ার পরামর্শে রূপচাঁনের সৎ মা বিয়ের দিন রূপচাঁন আর সুজনকে বাড়িতে রেখে দেয়।

বাসররাতে সুজনকে খাওয়ানোর জন্য রূপচাঁনের মা রূপচাঁনের হাতে তুলে দেয় বিষ মিশানো সরবতের গ্লাস। সরবত খেয়ে বাসর রাতেই সুজনের মৃত্যু ঘটে। ওই রাতেই রূপচাঁনের বাবাকে মেরে কন্যাকে তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্ত সেফা মিয়া। তার নিজের বাড়িতে নিয়ে রূপচাঁনকে ধর্ষণ করে ফেলে রাখে। রূপচাঁন এই লজ্জা সইতে না পেরে আত্মাহুতি দেয়। এমনি মর্মান্তিক গল্প-আখ্যানে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘রূপচাঁন সুন্দরীর পালা’।

সর্বমহলে প্রশংসিত এ প্রযোজনার রেশ ধরে দলটি মঞ্চে আনে নতুন প্রযোজনা ‘মর্তের অরসিক’। দলের অন্যতম সদস্য শামীমা শওকত লাভলীর রচনা ও নির্দেশনায় নির্মিত এ নাটকটিতে মূল উপজীব্য করা হয়েছে সমসাময়িক নানা অসঙ্গতিকে।