বিশেষ সংবাদ:

ভালোবাসার নাটক ‘জবর আজব ভালোবাসা’

Logoআপডেট: রবিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

এবি প্রতিবেদক

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে মঞ্চস্থ হবে থিয়েটারওয়ালা রেপাটরির আলোচিত নাটক ‘জবর আজব ভালোবাসা’। অন্তন চেখভের নাটক ‘দ্য বিয়ার’ অবলম্বনে নাটকটি অনুবাদ করেছেন মোবারক হোসেন খান। তিনটি চরিত্রে সাজানো এ প্রযোজনাটি রূপান্তর ও নির্দেশনা দিয়েছেন প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ নাট্যকার সাইফ সুমন।

আগামী ২ অক্টোবর মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে জাতীয় নাট্যশালায় স্টুডিও থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হবে কমেডি ঘরানার এ নাট্যসৃজন। হাস্যরস্য সংলাপ চয়নে নির্মিত এ নাটকে অভিনয় করেছেন মঞ্চের দাপুটে তিন অভিনয়শিল্পী রামিজ রাজু, সংগীতা চৌধুরী এবং সাইফ সুমন।

‘জবর আজব ভালোবাসা’ নাটকে- প্রয়াত স্বামীর শোকে সারাক্ষণ বিলাপ করতে থাকা গৃহকর্ত্রী প্রভার ওপর ভীষণ বিরক্ত বাসার কেয়ারটেকার সবুর। সবুরের কাছে জীবন মানে খাও-দাও ফুর্তি করো। কিন্তু গৃহকর্ত্রী প্রভা মৃত স্বামীর প্রতি এতটাই কাতর যে, দিন-দুনিয়া ভুলে গৃহবন্দি জীবনযাপন করতে থাকে।

বাসার বাইরে যাওয়া তো দূরের কথা, কেউ বাসায় এলে দেখা পর্যন্ত করে না সে। প্রভার সঙ্গে দেখা করতে একদিন সন্ধ্যায় কাঁটাবনের অ্যানিমেল ফুড ব্যবসায়ী নাভিদ বাসায় আসে। নাভিদ জানায়, প্রভার স্বামী তার দোকান থেকে নিয়মিত কুকুরের জন্য খাবার কিনত এবং বকেয়া বিল বাবদ তার কাছে পঞ্চাশ হাজার টাকা পাওনা আছে।

প্রভা জানে তার স্বামীর প্রচণ্ড কুকুরপ্রীতি ছিল। সে জানায়, টাকাটা শোধ করে দেবে কিন্তু তাকে দুই দিন সময় দিতে হবে। এর আগে কোনোভাবেই টাকা দেয়া সম্ভব না। নাভিদও নাছোড়বান্দা, সে টাকা না নিয়ে যাবেই না। দুজনের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের একপর্যায়ে নাভিদ নারী জাতকে দোষায় আর ক্ষিপ্ত হয়ে পুরুষদের হেনস্তা করতে গিয়ে স্বামীর সব অপকর্মের বয়ান দেয়। দু’জনের কথা-কাটাকাটির ঘটনাপ্রবাহে নাভিদ আবিষ্কার করে সে ভালোবেসে ফেলেছে প্রভাকে।

এমনি প্রাণবন্ত ঘটনাপ্রবাহে এগিয়ে চলে নাটক ‘জবর আজব ভালোবাসা’। পরিণতি দেখতে উপভোগ করতে হবে ব্যতিক্রমী ঘটনাচিত্রে নির্মিত এ নাট্যপ্রযোজনা। এরই মধ্যে নতুন এ নাটক বেশ প্রশংসিত হয়েছে। এটি থিয়েটারওয়ালা রেপাটরির দ্বিতীয় প্রযোজনা। ব্যতিক্রমী এই থিয়েটার সংগঠনটির প্রথম প্রযোজনা ছিল ‘সাইলক অ্যান্ড সিকোফ্যান্টস’।