বিশেষ সংবাদ:

মা-সন্তানের সম্পর্কটা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্পর্ক

Logoআপডেট: রবিবার, ১০ মে, ২০১৫

মিডিয়ার জনপ্রিয় মুখ আফরোজা বানু। মঞ্চ, টিভি মিডিয়া এমনকি চলচ্চিত্রাঙ্গনেও স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত। বিশেষ করে মায়ের চরিত্রে তাঁর সাবলিল ও প্রাণবন্ত অভিনয় অনবদ্য।

 

আজ ১০ই মে বিশ্ব মা দিবসে প্রাসঙ্গিক বিষয় ও সাম্প্রতিক ব্যস্ততা নিয়ে আমাদের 'হ্যালো শুনছেন?' বিভাগে কথা বলেছেন স্বপ্রতীভ এই অভিনেত্রী। -শিহাব ফারুক

 

আপনার কাছে ‘মা দিবস’র তাৎপর্য কেমন?
জগতে মায়ের মতো আপনজন আর কে আছে! মা-সন্তানের সম্পর্কটা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্পর্ক। এই দিনটি মায়ের বিরলত্যাগ-মর্যাদা এবং তাঁর প্রতি সন্তানের কর্তব্যের কথা বিশেষভাবে স্মরণ করিয়ে দেয়। যদিও মাকে শ্রদ্ধা-ভালবাসা দেখাতে নির্দিষ্ট দিনক্ষণের যুক্তি অনেকের কাছেই গ্রহনযোগ্য নয়।

 

বর্তমান বাস্তবতায় মা-সন্তানের সম্পর্ক কতটা মমত্বপূর্ণ থাকছে বলে মনে করেন?
এটা সত্যি যে, সন্তান বড় হওয়ার সাথে সাথে নানা কারণে মায়ের সাথে তার দূরত্বের সৃষ্টি হয়। কেননা সে বড় হয়, সংসার হয়, তার ব্যস্ততা বাড়ে। ফলে সে মাকে মনে করেনা। হয়তো বাড়ি দেয়, টাকা দেয়, ভালো খাবার দেয়। কিন্তু মা চায় সন্তান কাছে এসে তাঁকে একটিবার ‘মা’ বলে ডাকুক। সেসব মা ও সন্তানের জন্য এ দিবসটি অনেক বেশি গুরুত্বের। কেননা, এই একটি দিনেও যদি সন্তানের ভেতরটা একটুখানি নাড়া দেয়, মা’কে মনে করে সে যদি তাঁর কাছে ছুটে যায়...। যেসব সন্তান নিয়মিত মায়ের কাছাকাছি থাকে তারা হয়তো বিষয়টি অতোটা উপলব্ধিতে নেবেনা।



মিডিয়ায় সাম্প্রতিক ব্যস্ততা কেমন?
অভিনয় এখন পেশা হলেও ৩০দিন-তো আর কাজ করা সম্ভব নয়। এখন আবু তৈয়ুব পরিচালিত বিটিভির নাটক ‘১৯৭১’, সবুর খানের ‘দাগ, রুলিন রহমানের ‘মায়া খেলা’, গোলাম সারোয়ার দুদুলের ‘পাল্টা হাওয়া’ এবং রহমত উল্যা তুহিন নির্মিত ‘যখন কখনও’ সহ বেশ কয়েকটি নাটক নিয়ে ব্যস্ততা যাচ্ছে।

 

টিভি মিডিয়ায় বর্তমানে কাজের পরিবেশকে কিভাবে দেখছেন?
আসলে প্রতিটি ক্ষেত্রেই কাজের সুবিধা-অসুবিধা আছে। তবে বাংলাদেশে কোন গল্প বা অবস্থাই একমাত্র বিষয় নয়। এর সাথে সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক সর্বপরি দৃষ্টিভঙ্গিসহ অনেক কিছুরই সংযোগ রয়েছে।

 

একজন নারীসংগঠক হিসেবে নারীর ক্ষমতায়ন কতটা শক্তিশালী হয়েছে বলে মনে করেন? 
একেবারে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর একজন মাত্র নারীও, যে বাল্যবিবাহ রোধে তার অধিকারের বিষয়ে সচেতন নয়, যে নিজেকে বঞ্চিত রেখেছে, মানবিক এবং নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় তাকে জাগ্রত করা পর্যন্ত এই প্রয়াস চলবে।

 

সম্প্রতি মঞ্চনাটকে আপনার তুলনামূলক উপস্থিতি কম হওয়ার কারণ কি?
দলীয় কার্যক্রম নিয়মিত চলছে তবে সম্প্রতি একাধিক পথনাটক নিয়ে দলের তরুণ নাট্যকর্মীরাই বেশি কাজ করছে। অবশ্য, নতুন একটি নাটক মঞ্চে আনার পরিকল্পনা চলছে। যেখানে আমিও কাজ করবো।

 

আমাদের থিয়েটারে নারী নাট্যকর্মীদের অবস্থানকে কিভাবে মূল্যায়ন করবেন? 
এখন মেয়েদের অনেকেই থিয়েটারসহ নানা ক্ষেত্রে ব্যাপকভাবে এগিয়ে আসছে। আমাদের সময়কার সাথে আধুনিকায়ন ও দৃষ্টিভঙ্গির ব্যবধানে এই পরিবর্তন এসেছে। তবে এখনও নারীদের চলার পথে অনেক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তারাকি আজও পূর্ণস্বাধীনতায় ঘর থেকে বের হতে পারছে? নাকি সন্ধ্যার পর নির্ভয়ে ঘরে ফিরতে পারছে?