বিশেষ সংবাদ:

ক্যান্সার শনাক্তকরণ যন্ত্র আবিষ্কার করলো বাংলাদেশি তরুণ!

Logoআপডেট: শনিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৪

এবি প্রতিবেদক
বাংলাদেশি তরুণ বিজ্ঞানী আবিষ্কার করলেন ড. জহিরুল আলম সিদ্দিকী ক্যান্সার শনাক্তকরণের সর্বাধুনিক এক যন্ত্র।

 

ক্যান্সার শনাক্তকরণ বাংলাদেশের মতো নিম্নআয়ের দেশের মানুষের কাছে সহজলভ্য হবে, এমন গবেষণার জন্য তিনি ২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ান রিসার্চ কাউন্সিল থেকে অনুদান পান।


এরই ধারাবাহিকতায় ন্যানোশিয়ারিং নামে এক পদ্ধতি উদ্ভাবন করেন জহিরুল। যার মাধ্যমে মানব রক্তের অভ্যন্তরে অবস্থিত অতি বিরল এক ধরনের কোষ (সার্কুলেটিং টিউমার সেল বা সিটিসি) সুনির্দিষ্টভাবে শনাক্ত করা সম্ভব। এ আবিষ্কারের খবর আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটির জার্নালসহ কয়েকটি বিখ্যাত জার্নালে প্রকাশিত হয়।

 

ড. সিদ্দিকীর জন্ম সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী গ্রামে। বাবার নাম আবদুুল হাকিম তালুকদার, মা মজলিছুন নেছা তালুকদার। তারা পাঁচ ভাই, এক বোন।


গত বছরের শেষদিকে ড. সিদ্দিকী ন্যানোশিয়ারিং পদ্ধতির ভৌত গুণাবলি আবিষ্কারের জন্য আবারও অস্ট্রেলিয়ান রিসার্চ কাউন্সিল থেকে সাড়ে তিন লাখ ডলার অনুদান পান।

 

সাধারণ মানুষের কাছে এ সংক্রান্ত অধিকতর গবেষণা এবং গবেষণাটি সহজলভ্য করতে গত মাসে তিনি অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল হেলথ অ্যান্ড মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল থেকে ৪ লাখ ১১ হাজার ডলার অনুদান পান। অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক হিসেবে নিয়োজিত। তার স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে অস্ট্রেলিয়াতেই থাকেন।