বিশেষ সংবাদ:

টেলিভিশন চ্যানেল পাচ্ছে শিল্পকলা একাডেমি

Logoআপডেট: বৃহস্পতিবার, ০৮ মার্চ, ২০১৮

এবি প্রতিবেদক 
‘শিল্প-সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ’ গড়ার প্রত্যয়ে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। সেই ধারাবাহিকতায় এবার টিভি চ্যানেল পাচ্ছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ‘শিল্পকলা টিভি’ নামে শিগগিরই একটি টিভি চ্যানেল চালু করতে যাচ্ছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

শিল্পকলা একাডেমির আবেদনের প্রেক্ষিতে দেশের শিল্প-সংস্কৃতি এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির বর্ণাঢ্য কার্যক্রমকে দেশের তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের কাছে তুলে ধরতেই এই উদ্যোগ নেয় হয়েছে বলে জানা গেছে। নতুন এই চ্যানেলে প্রচার করা হবে নাটক, সঙ্গীত, নৃত্য, আবৃত্তি এবং চিত্রকলাসহ শিল্পের বিভিন্ন মাধ্যমের নানা অনুষ্ঠান। দেশজ কৃষ্টি-সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যকে প্রাধান্য দেওয়া হবে এই চ্যানেলে। আর বিজ্ঞাপন থেকে প্রাপ্ত আয়ের জোগানেই চলবে চ্যানেলটি।

প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী দায়িত্ব নেওয়ার পর ২০১২ সালে একটি স্বতন্ত্র চ্যানেল প্রতিষ্ঠার জন্য আবেদন করেন। মূলত, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির কর্মকাণ্ডকে ব্যাপকভাবে প্রচার-প্রসারে এবং তা সমগ্র দেশে ছড়িয়ে দেয়ার মধ্য দিয়ে ‘শিল্প-সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ’ গড়ার প্রত্যয়ে এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। সেই থেকে চলছিল চিঠি চালাচালি। অবশেষে অনুমোদন পেতে যাচ্ছে ‘শিল্পকলা টেলিভিশন’। এবং সংসদ টেলিভিশনই রূপ পেতে যাচ্ছে শিল্পকলা টেলিভিশন হিসেবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এরই মধ্যে ‘শিল্পকলা চ্যানেল’-এর বিষয়ে সম্মতি দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‘আমরা সবাই জানি আমাদের সংস্কৃতিবান্ধব সরকার সারাদেশে সংস্কৃতির আলো ছড়িয়ে দিতে বদ্ধপরিকর। আমরা প্রথমে একটি স্বতন্ত্র চ্যানেলের আবেদন করেছিলাম। এ নিয়ে অনেক আলাপ-আলোচনার পর প্রধানমন্ত্রী পরামর্শ দিয়েছেন, ‘‘যেহেতু সব সময় সংসদ টেলিভিশনের সম্প্রচার কার্যক্রম থাকে না, তাই সংসদ টেলিভিশনটাকেই শিল্পকলা টেলিভিশন হিসেবে পরিণত করা যেতে পারে।’’ সে মোতাবেক পরবর্তী কার্যক্রম এগিয়ে চলছে।’

সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে মত দিয়েছেন। জাতীয় সংসদের স্পিকারের সঙ্গেও বিষটি নিয়ে কথা হয়েছে। তাঁদের আপত্তি নেই। শিগগিরই আনুষ্ঠানিক বৈঠকের মধ্য দিয়ে সংসদ টিভি টেকওভার করে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে নেয়া হবে। আর যখন সংসদ অধিবেশন চলবে, তখন আমরা তা সম্প্রচার করব। অন্য সময়ে এই টেলিভিশন চ্যানেলে সাংস্কৃতিক কার্যক্রম সম্প্রচার করা হবে।’

রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি থেকেই ‘শিল্পকলা চ্যানেলটি’ পরিচালিত হবে বলে জানা গেছে। এর জন্য সম্পূর্ণ ডিজিটাল স্টুডিও স্থাপন, হাই ফ্রিকোয়েন্সি সাউন্ড সিস্টেম, অত্যাধুনিক ক্যামেরা, লাইটসহ একটি স্বতন্ত্র টেলিভিশন চ্যানেল পরিচালনার জন্য যে ধরনের যন্ত্রাংশ প্রয়োজন, এর সবই সংযোজন করা হবে এবং কারিগরি বিষয় যথাযথভাবে পরিচালনার জন্য নতুন কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে। বলে জানিয়েছেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী।

এর আগে ২০১১ সালে জাতীয় সংসদের কার্যক্রম দেশবাসীর কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করে ‘সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন’।