বিশেষ সংবাদ:

যে খেলনাগুলো শিশুদের মানসিক বিকাশে বাধা সৃষ্টি করে

Logoআপডেট: শনিবার, ১৭ মে, ২০১৪

এবি প্রতিবেদক
ছোটবেলা থেকেই শিশুকে যেভাবে গড়ে তুলবেন বড় হয়ে তাঁর চরিত্র সেরুপ হবে। কেননা শিশু বয়সই চরিত্র এবং মস্তিষ্ক গঠনের শ্রেষ্ঠ সময়। এ সময় শিশুদের এমন কোন খেলনা কিনে দেবেন না যার দ্বারা তাঁর মনে খারাপ প্রভাব পড়ে। বাজারে শিশুদের কিছু খেলনা বিক্রি হয় যা তাদের জন্য মোটেও উপযোগী নয়। কারণ এসব খেলনা শিশুর স্বাভাবিক বিকাশে বিঘ্ন ঘটায়। এছাড়া এসব খেলনা তাদের মনে নানা ধরণের বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। তাই চলুন জেনেনি কোন কোন খেলনা শিশুদের জন্য মোটেও উপযোগী নয়।

বার্বি পুতুল
শিশুদের খেলনার অন্যতম একটি পুতুল। বাজারে বিভিন্ন ধরনের পুতুল পাওয়া যায়। কিন্তু বার্বি পুতুল বাচ্চাদের জন্য ভালো খেলনা নয়। বিশ্ব জুড়ে এই নিয়ে বিভিন্ন সময় নানা বিতর্ক হয়েছে। এর কারণ হচ্ছে বার্বি পুতুলের অস্বাভাবিক দেহের গড়ন যা এক ধরণের অসুস্থ ছাপ ফেলে কিশোর মনে। কিশোর বয়স থেকেই শুধুমাত্র বার্বি পুতুলের কারণে তারা স্বাস্থ্য ভালো মানুষের প্রতি অন্যরকম দৃষ্টি ফেলে। এ প্রসঙ্গে গবেষকরা জানিয়েছেন, বার্বির জন্য যে সকল আলাদা ধরণের এক্সেসরিজ রয়েছে তা বাচ্চাদের সীমাহীন চাহিদার সৃষ্টি করে । তাই বাচ্চাকে বার্বি পুতুল কিনে দেয়া থেকে বিরত থাকাই ভালো।
    
কথা বলা খেলনা
বাচ্চাদের আবদার রক্ষা করতে অভিভাবকগণ অনেক সময় কথা বলা খেলনা কিনে দেন। কিন্তু আপনি কি জানেন? এই খেলনা আপনার আদরে বাচ্চার ক্ষতি করে থাকে। বর্তমানে বাজারে কথা বলা খেলনার কমতি নেই। চাবি ঘুরিয়ে কিংবা সামান্য চাপ দিলে পুতুলের মুখ থেকে বের হতে থাকে কথা। বাচ্চারা এই ধরনের খেলনা বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু গবেষনা করে জানা যায়, এই ধরণের খেলনা বাচ্চাদের আইকিউ কমিয়ে দেয়। একই কথা বারবার বলা বাচ্চাদের চিন্তা করার খমতায় ব্যাঘাত ঘটায় ফলে বাচ্চাদের স্বাভাবিক বিকাশে বাঁধা ফেলে।


বন্দুক বা পিস্তল জাতীয় খেলনা
বাচ্চাদের মন সবসময় কোমল থাকে। তাই এমন কোন খেলনা কিনে দেওয়া উচিত নয় যা তাদের মনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া জন্ম দেয়। বিশেষ করে একটি ছেলে শিশুর কাছে বন্দুক বা পিস্তল ধরণের খেলনা অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়ে থাকে। কিন্তু গবেষণায় দেখা যায় এই ধরণের খেলনা বাচ্চাদের হিংসাত্মক মনভাবের জন্ম দেয়। তারা ছোটকাল থেকেই শিখে ফেলে এই সকল জিনিস শক্তির প্রতীক যা দিয়ে অনেক কিছুই করা সম্ভব। এই জন্য অভিভাবকদের উচিত বাচ্চাদেরকে আক্রমনাত্বক খেলনা কিনে না দিয়ে গঠনমূলক খেলনা কিনে দেওয়া। যেমন ভিডিও গেম বাচ্চাদের মানসিক বুদ্ধি বিকাশে সহায়তা করে।